©2018 by MHCF. Proudly created with Wix.com

মনিয়ন্দ চৌধুরী বাড়ির পারিবারিক বংশতালিকার খসড়া, ২০১৮, ২০১৯ সাল
সজীব চৌধুরী (Social Media Alias Name:  আরিফ চৌধুরী)

কৃতগ্গতা স্বীকার


মনিয়ন্দ চৌধুরী বাড়ির ২৫০-৩০০ বছরের বংশতালিকা তৈরীর এবং এর ইতিহাস বাচিয়ে রাখার পেছনে পেছনে যে দুইজন মানুষের অবদান সবচেয়ে বেশি তারা হচ্ছেন প্রয়াত সাইদুর রহমান চৌধুরী এবং প্রয়াত মমিনুল হক চৌধুরী. উনাদের করা বংশতালিকাগুলি থেকেই আমি বাড়ির পুরানো বংশতালিকা নতুন করে তৈরী করার এবং এবং চৌধুরী বাড়ির মুক্তিযোদ্বাদের তালিকা ডিজিটাইজড  করার প্রয়াস নেই।  

২০১৯ সালে সোহাগ চৌধুরী হতে প্রাপ্ত প্রয়াত জসিম চৌধুরীর করা একটি কম্পিউটার কম্পোজ  করা আংশিক  তালিকা আমার হাতে আসে, সেটিতে বাচ্চু মিয়া চৌধুরী ও জিতু চৌধুরীর দেয়া তথ্যে জসিম চৌধুরী তালিকাটি তৈরী করেন।. উক্ত তালিকায় আরো কিছু নতুন তথ্য পাওয়া যায়, যেমন বকর খান চৌধুরীর আগের দুইটি জেনারেশনের নাম , এবং পরবর্তী বংশধরদের আরো কিছু বর্ণনা পাওয়া যায়.. আমি সেই তথ্যগুলিও নতুন তালিকাতে সন্নিবেশিত করছি।.  

সাইদুর রহমান চৌধুরী
নিজের বাড়ির বৈঠক খানায় উনি নিজের ছবি বড় করে দেয়ার বদলে বড় করে বংশতালিকার চার্ট টি তৈরী করে গিয়েছেন। উনি একসময় বাড়ির সবচেয়ে Influential মানুষ ছিলেন। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে উনার সাথে কোন Interaction করার সুযোগ না পেলেও, উনার এই একটি কাজের মাধ্যমে আমার কাছে উনি বিশাল শ্রদ্বার পাত্র হিসাবে থাকবেন। উনার সময়ে কম্পিউটার ছিলনা, কিন্তূ পারিবারিক বংশতালিকার গুরুত্ব বুঝতে পেরেছিলেন বলেই এটা তৈরী করে গিয়েছিলেন.. উনার তালিকা টি উনার বাড়ির বৈঠক খানায় ৩০-৩৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে প্রকাশ্যে ঝুলানো আছে.. উনার তালিকাটিকে আমরা আমাদের বাড়ির একটি একটি ঐতিহাসিক দলিল হিসাবে ধরতে পারি.

সাইদুর রহমান চৌধুরীরা, উক্ত চার্টে  বাড়ির মুক্তিযোদ্ধাদের নামগুলিও প্রকাশ করে যান. সাইদুর রহমান চৌধুরী র তালিকায় ৫ জন কে মনিয়ন্দ চৌধুরী বাড়ির মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে লিপিবদ্ধ করা হয়.. এই চার্ট বাড়ির সকল মুক্তিযোদ্ধারা জীবিত থাকার সময় কালে এবং সকল মুরুব্বিদের জানামতে করা হয়েছিল।.  

তবে, বর্তমানে চার্টটি মরন দশায় আছে..  দু:খের বিষয়, সাইদুর রহমান চৌধুরীর নিকটাত্বিয়রা এখন পর্যন্ত উনার কাজটিকে গুরুত্ব দেন নি।

মমিনুল হক চৌধুরী
বাড়ির ভবিস্যত নিয়ে আরেকজন ভাবতেন, সেটা হচ্ছেন আমার বাবা মমিনুল হক চৌধুরী,  তিনি বংশতালিকার একটি বই  তৈরী করে দিয়ে যান, যেটি কে আমি ২০১৮ সালে ডিজিটাইজড(Digitized) করি. আমার কাজের জন্য আমি উনার কাছে সরাসরি কৃতগ্গ, উনার বংশতালিকার বইটি ছাড়া, বাড়ির বংশতালিকা নতুন করে ডিজিটাইজড করা সম্ভব হত না, আমাদের বাড়ির বংশতালিকার ইতিহাস হয়ত চিরকালের মতহারিয়ে যেত.

মমিনুল হক চৌধুরীর তৈরী করা বংশ তালিকার চার্ট নিচের লিন্কে পাবেন

https://drive.google.com/open?id=1isS6xw0yZRgcsrhPPg32QtGdF6fSvsLF

সাইদুর রহমান চৌধুরীর করা বংশতালিকার চার্ট এবং মমিনুল হক চৌধুরীর করা বংশতালিকার বইটি র মধ্যে তথ্যের কোন অমিল নেই.. একই নামগুলি বংশাক্রমিক ভাবে দেয়া আছে। দুইটি তালিকাতেই একই তথ্য দেয়া আছে, কোন অমিল নেই।মুক্তিযোদ্বাদের নামেও কোন অমিল নেই।

জসিম চৌধুরী:

২০১৯ সালে সোহাগ চৌধুরী হতে প্রাপ্ত জসিম চৌধুরীর করা একটি কম্পিউটার কম্পোজ  করা আংশিক  তালিকা আমার হাতে আসে, সেটিতে বাচ্চু মিয়া চৌধুরী ও জিতু চৌধুরীর তথ্যে জসিম চৌধুরী তালিকাটি তৈরী করেন।. উক্ত তালিকায় আরো কিছু নতুন তথ্য পাওয়া যায়, যেমন বকর খান চৌধুরীর আগের দুইটি জেনারেশনের নাম , এবং পরবর্তী বংশধরদের আরো কিছু বর্ণনা পাওয়া যায়.. আমি সেই তথ্যগুলিও নতুন তালিকাতে সন্নিবেশিত করছি।.  

জসিম চৌধুরীর করা বংশতালিকার চার্ট নিচের লিংক এ পাবেন 

https://drive.google.com/open?id=12RoEecbP9Dm3z38BLQE6dsBsZ6kQf315

https://drive.google.com/open?id=1SvoyeHm6YQa9ZyqmQm5eif8crv3QvytI

আমি আমাদের পুর্ব পুরুষ সুলতান চৌধুরী, সাইদুর রহমান চৌধুরী, মমিনুল হক চৌধুরী, জসিম চৌধুরীর  কাজগুলির গুরুত্ব উনাদের মত করেই অনুধাবন করি,.. উনারা , নিজেদের ব্যক্তিগত ছবি  দেয়ালে না টান্গিয়ে, বংশতালিকা দেয়ালে টান্গিয়ে গিয়েছেন, বা  বংশতালিকার বই তৈরী করেদিয়ে গিয়েছেন.  

 

আলহামদুলিল্লাহ, আল্লাহ আমাকে সৌভাগ্য দিয়েছেন কাজগুলিকে হারিয়ে না যেতে দেয়া, মনিয়ন্দ চৌধুরী বাড়ির বংশ তালিকার সর্বাধুনিক ডিজিটাইজড ভার্সন তৈরি করার জন্য ঘন্টা পর ঘন্টা সময় দিয়েছি। আশা করি, এবার আমাদের পুর্বপুরুষ দের লিগেসি হারাবে না.. অনলাইনে ডিজিটাইজড হওয়ার কারনে, বর্তমান প্রজন্ম তাদের  খুজে পাবে অতি সহজেই।  নতুন করে গোলাকার ভাবে তৈরী করার কারণে, বংশতালিকায় যে কেউ নিজের অবস্থান সহজেই খুঁজে পাবে।. এছাড়া গোলাকার চার্ট বাড়িতে প্রদর্শন করার সহজ হবে..

আল্লাহের কাছে হাজার শুকরিয়া, আমার জন্য এত বড় কাজ রাখার জন্য। আশা করি ভবিস্যতে বাড়ির তরুনেরা চার্ট টি আপডেট করতে থাকবে। ডিজিটাইজড হওয়ার কারনে আমাদের পরিচয়, বংশতালিকা টি হারিয়ে যাওয়ার ভয় নেই আর, আলহামদুলিল্লাহ.।

আধুনিক বংশতালিকা ডাউনলোডের জন্য লিংক: 

https://drive.google.com/open?id=1l8Xm-ZEDPPj5d-OzgGnqLlZ8Htm4LFb5

কোথাও ভুল থাকলে, দয়া করে দেখিয়ে দিলে আমরা ভুলগুলি সংশোধন করব, কিন্তু অবশ্যই যথাযথ সূত্রসহ যোগাযোগ করবেন .. 

সবশেষে, যারা এর মধ্যে খুত খোজার বা উদ্দেশ্য খোজার চেস্টা করবেন, দয়া করে, এক গ্লাস ঠান্ডা পানি খান, একটাই তো জীবন, আরেকজনের দোষ না খুজে,  নিজের জীবনে  একটু মূল্য যোগ করার চেস্টা করেন. বেশি দেরি কইরেন না, আমাদের সবার সময় কিন্তু সীমিত, মমিনুল হক চৌধুরী বেচে নাই, সাইদুর রহমান চৌধুরী বেচে নাই.. আমরাও থাকবো না.. সময়ের ব্যপার মাত্র.। 

-সজিব চৌধুরী
জুন, ২০১৯, নর্থ আমেরিকা

সাইদুর রহমান চৌধুরীদের  তৈরী করা  বংশতালিকা এবং বাড়ির মুক্তিযোদ্বাদের তালিকা (১৯৮০ থেকে ১৯৯০ সালের মধ্যে তৈরী করা )

সাইদুর রহমান চৌধুরীদের  তৈরী করা বংশতালিকায় বাড়ির মুক্তিযোদ্বাদের নাম উল্লেখ করা (১৯৮০ থেকে ১৯৯০ সালের মধ্যে তৈরী করা )

মমিনুল হক চৌধুরীর ১৯৯৫ সালের দিকে তৈরী করা বংশতালিকার বই

মমিনুল হক চৌধুরীর ১৯৯৫ সালের দিকে তৈরী করা বংশতালিকার  বই এর প্রথম পৃস্ঠা

জসিম চৌধুরীর  ১৯৯৫ সালের দিকে তৈরী করা বংশতালিকার  বই এর প্রথম পৃস্ঠা

Bakar_khan_chowdhury_9_27_2019.jpg
মনিয়ন্দ চৌধুরী বাড়ির পারিবারিক বংশতালিকার নতুন সর্বাধুনিক ডিজাইনের খসড়া, ২০১৮, ২০১৯ সাল
সজীব চৌধুরী (Social Media Alias Name:  আরিফ চৌধুরী)